ছন্দা: সৃজনশীলতাই তাকে করেছে উদ্যোক্তা!!



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়োকেমিস্ট্রি থেকে পাশ করার পর ক্যারিয়ারটা হওয়া উচিত ছিলো কোন ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানিতে। কিন্তু আটটা পাঁচটা কোম্পানির জব কখনোই ছন্দার ঠিক পোষাতো নাবরং সবসময় মাথায় খেলা করতো বিভিন্ন ধরনের আইডিয়া।

আর এমন ভাবনা থেকেই শুরু!! পেইন্টিংস যে কেবল ঠাণ্ডা ঘরে নরম আলোয় প্রদর্শনের জিনিস নয়, এটা যে আপনার স্মার্টফোনের ব্যাক কভারে সেটে ঘুরতে পারে আপনার সাথেই!! আর বাড়াতে পারে আপনার স্মার্টফোনটির স্মার্টনেস!! এমন অভিনব আইডিয়া থেকেই ছন্দার ক্যানভাস হয়ে ওঠে স্মার্টফোনের ব্যাক কভার

মাঝে মাঝে কি ইচ্ছে হয় না স্মার্টফোনের ব্যাক কভারে কোন প্রিয় মুখের ছবি দেখতে? কিংবা অদ্ভুত কোন সুন্দর দৃশ্য দিয়ে আপনার একঘেয়েমি ব্যাক কভারকে রাঙাতে? যাতে করে যে কোন সুন্দর পেইন্টিংসও হয়ে উঠতে পারে আপনার দৈনন্দিন ব্যবহারের জিনিস।

আর তাই স্মার্টফোনের ব্যাক কভারকে আকর্ষণীয় করে তুলতেই অনলাইন সার্ভিস দিচ্ছে “ফিনিক্সের ছবির দোকান” ফেসবুক পেইজটি। এই সার্ভিসটির উদ্যোক্তাই আমাদের আজকের গল্প তিনি কানিজ ফাতেমা ছন্দাতার মাথায় আসা আইডিয়াগুলো যে বৃথা যায়নি সে গল্পই পাঠকদের শোনাবো আজ।

বায়োকেমিস্ট থেকে উদ্যোক্তা হয়ে উঠা!!



Artista এবং ছন্দার ইন্টেরিয়র ডিজাইনার হয়ে উঠা



উদ্যোক্তা ছন্দার আমার আমি!



নিজস্ব প্রতিবেদক, ছবিছন্দার ফেসবুক টাইমলাইন থেকে নেয়া

More news