অ্যাপবাজার: বাংলাদেশের অ্যান্ড্রয়েড ইউজার ও ডেভেলপারদের প্ল্যাটফর্ম



অ্যাপের জন্য গুগল প্লে স্টোর সবার কাছে পরিচিত। যেকোন ভাষার যেকোন দেশে প্রস্তুতকৃত অ্যাপের জন্য সবাই গুগল প্লে স্টোরকেই বেছে নেয়। এছাড়া বিভিন্ন ফোন কোম্পানি ছাড়াও আরো অনেকগুলো অ্যাপ স্টোর রয়েছে। আমাদের দেশ ভিত্তিক বেশ কিছু অ্যাপ স্টোরও রয়েছে। আজ বলছি বাংলাদেশি প্রথম অ্যাপ স্টোর Appbajar এর কথা।

বাংলাদেশের অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী ও ডেভেলপারদের প্ল্যার্টফর্ম হিসেবে যাত্রা শুরু করেছে অ্যাপবাজার। নিজস্ব ওয়েবসাইট ও অ্যাপের মাধ্যমে প্ল্যার্টফর্মটি বাজারে এনেছে Advanced App Bangladesh Ltd।

পেইড অ্যাপ কেনা ও আপলোডের ক্ষেত্রে বাংলাদেশে শুরু থেকেই সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছিলেন ব্যবহারকারী ও ডেভেলপার উভয়েই। ব্যবহারকারীদের অনেকেরই আন্তর্জাতিক কার্ড বা পে-পাল না থাকায় বঞ্চিত হচ্ছিলেন পছন্দের অ্যাপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে। আবার ডেভেলপারও একই সমস্যার কারণে অ্যাপ বিক্রি করতে ঝামেলায় পড়ছিলেন।

এই অবস্থার কথা মাথায় রেখেই অ্যাপবাজার আইডিয়ার সূচনা। ব্যবহারকারী ও গ্রাহকের কথা সমানভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে অ্যাপবাজারে। ফ্রি অ্যাপের অর্থ হলো ডেভেলপারকে তার মেধার মূল্য না দেওয়া। আবার অ্যাপের উচ্চমূল্য হলে বেশি ব্যবহারকারী অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবে না।

তাই অ্যাপবাজার দুই দিকে ব্যালেন্স করেছে খুব চমৎকার ভাবে। অ্যাপবাজারে কোনো ফ্রি অ্যাপ নেই। আতকে উঠবেন না! কারণ অ্যাপের দাম শুনলেই বুঝতে পারবেন ফ্রি নাকি ব্যয়বহুল। অ্যাপ বাজার থেকে একটি অ্যাপ কিনে ইনস্টল করতে অধিকাংশ অ্যাপের ক্ষেত্রে আপনাকে গুনতে হবে মাত্র ১ পয়সা থেকে ১০ পয়সা !!

কিছু অ্যাপের ক্ষেত্রে মূল্য পড়বে ১০ পয়সা থেকে ১ টাকা পর্যন্ত। মূল্য পরিশোধ আরো সহজ। অ্যাপ ইন্সটল করার সময় আপনি যে মোবাইল নাম্বারটি সরবরাহ করবেন সেখান থেকেই কোন অতিরিক্ত চার্জ ছাড়াই কেটে নেওয়া হবে এই মূল্য। এর চেয়ে সহজ অ্যাপ কেনার পদ্ধতি আর কি হতে পারে?

ডেভেলপারদের অ্যাপ পাবলিশ করার ক্ষেত্রেও সুবিধা দিচ্ছে অ্যাপবাজার। ডেভেলপাররা এখানে অ্যাপ আপলোড করে নিতে পারেন আয়ের সুযোগ। এবং অ্যাপ আপলোড করা যায় সম্পুর্ণ বিনে পয়সায়। মাস শেষে কোন অতিরিক্ত ঝামেলা ছাড়াই নিজের ব্যাংক একাউন্টে অ্যাপ বিক্রির টাকা পাবার সুবিধা পাবেন ডেভেলপার।

এছাড়াও অ্যাপ কেনা বেচার টাকা আদান প্রদান করা যাবে মোবাইল ব্যাংকিং ও আন্তর্জাতিক পেমেন্ট সিস্টেমে।

ইউজার ফ্রেন্ডলি চমৎকার ইন্টারফেসের এই সাইট/অ্যাপের একটি বড় সুবিধা হলো, একজন ব্যবহারকারী চাইলেই ডেভেলপারের সাথে চ্যাট করে শেয়ার করতে পারবেন নিজের অভিব্যক্তি। এছাড়াও নিজের পরিচিত ব্যক্তিদের সাথে চ্যাট করেও একজন ব্যবহারকারী অন্য একজনকে অ্যাপ রেফার করতে পারবেন। আবার একজন ডেভেলপার আরেকজন ডেভেলপারের সাথে চ্যাটিং ও ফাইল শেয়ারিংয়ের সুবিধা পাবেন।

আরেকটি ফিচার হলো, অ্যাপবাজার ব্যবহারকারীরা পছন্দের যেকোন অ্যাপস তাদের বন্ধুদের উপহার দিতে পারবে। এছাড়া কোন বন্ধুকে অ্যাপবাজার রেফার করার জন্য থাকবে রেফারেল বোনাস। আর সবচেয়ে বেশী অ্যাপ ব্যবহারকারীদের জন্য অ্যাপবাজার রেখেছে রিওয়ার্ড সিস্টেম।

যেসব ক্যাটাগরির অ্যাপ এখানে পাবেন: Books and Reference, Business, Comics, Communication, Education, Finance, Entertainment, Health & Fitness, Libraries & Demo, Lifestyle, Media & Video, Medical, Music & Audio সহ আরো অনেক...

বাংলাদেশি অ্যাপ ডেভেলপারদের তুলে ধরার এই প্ল্যার্টফর্মটি টার্গেট করেছে আগামী দুই বছরের ভিতরে ৫০ হাজার ডেভেলপার তৈরী করার। তাহলে আর দেরী কেন, ভালো অ্যাপ তৈরী করে আজই নেমে পড়ুন। দেশীয় বাজারে নিজের মেধা, দক্ষতার প্রতিযোগীতায় নিজেকে ঝালাই করে নিন।

কাল হয়তো আন্তর্জাতিক বাজারে বাংলাদেশি ডেভেলপারদের অ্যাপই রাজত্ব করবে। তাই দেশীয় অ্যাপ ব্যবহার করে অনুপ্রেরণা দিন আমাদের তরুণ  ডেভেলপারদের। অ্যাপবাজার অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারবেন তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইট www.appbajar.com থেকে।

বিশেষ প্রতিনিধি, ছবি: ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত


More news