স্কুল জীবনে আমি কখনই ফার্স্ট হতে পারিনি: ইরেশ যাকের



“আমি স্কুল জীবনে কখনোই ফার্স্ট হতে পারিনি। বড়জোর আমি থার্ড হয়েছিলাম একবার। কিন্তু যতবারই রেজাল্ট বের হতো মা জিজ্ঞাসা করতেন আমি কততম হয়েছি! আমি সবসময় বলতাম প্রথম হয়েছি। একবার যখন সতেরো তম হলাম তখনো বেশ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলেছিলাম প্রথম হয়েছি।”

ইরেশ যাকের! আজকের দিনে একজন জনপ্রিয় অভিনেতা, উপস্থাপক এবং প্রযোজক। পাশাপাশি কাজ করছেন এশিয়াটিক মার্কেটিং অ্যান্ড কমিউনিকেশনস লিমিটেডের কার্যনির্বাহী পরিচালক এবং রেডিও স্বাধীনের পরিচালক হিসেবে।

প্রমাণ করেছেন স্কুলজীবনে প্রথম না হয়েও কীভাবে জীবনের বাকি অধ্যায়গুলোতে সবাইকে ছাড়িয়ে যাওয়া যায়। এক তুমুল বৃষ্টির দিনে এশিয়াটিকের অফিসে তার সাথে আড্ডায় বসেছিল বিডিইয়ুথ। আড্ডাচ্ছলে উঠে এলো এই বর্ণাঢ্য মানুষটির জীবনের বর্ণিল সব ঘটনা। চলুন শুনে আসা যাক সেই গল্পগুলো।

অভিনেতা হবো বলে স্টেজ পারফর্মেন্স করিনি


ভাত যে কত প্রিয় আমেরিকায় গিয়ে টের পেলাম!!!


তরুণদের উন্নতিতে একাডেমিক পড়াশুনার ভূমিকা কতটুকু?


কি করে অভিনয়ে এলেন ইরেশ?


ফটোগ্রাফার ইরেশ


ব্যক্তিগত জীবনে ইরেশের ভালোলাগা


নিজস্ব প্রতিবেদক

 

More news