দাম্পত্য সম্পর্ক ঝালাই করে নিন



আশিক একটা প্রাইভেট কোম্পানিতে জব করেন কাজের প্রচুর চাপ,রাতে বাসায় ফিরে ডিনার করে ঘুমাতেই আবার সকালে অফিসকর্পোরেট ক্যারিয়ারকে তুঙ্গে রাখতে গিয়ে একসময় ভেঙ্গে যায় পরমার সাথে প্রেমের বিয়ের সম্পর্কটা

নীলিমা একটা কিন্ডারগার্টেন স্কুলের টিচারবাচ্চা, স্কুল আর নিজের বুটিক হাউজ সামলাতে সামলাতে কখন যেন একটা দূরত্ব এসে যায় স্বামী শোয়েবের সাথে বুঝতে অনেক দেরি হয়ে যায় এবং দূরত্ব বাড়তে বাড়তে ফলাফল ডিভোর্স

চাকরি বা ব্যবসা বলেই নয়, এমন হয়েছে পুরোদস্তুর গৃহিণী তন্দ্রার সাথেও

কর্পোরেট জীবন, ক্যারিয়ার, যান্ত্রিকতা সবকিছুর সাথে তাল মিলাতে গিয়ে কখন যেন অজান্তেই হারিয়ে যায় এক সময়ের প্রিয় মানুষেরা সম্পর্ক লৌহ হৃদয়েও মরিচা ধরায় আবার একটু সচেতন হলে সেই সম্পর্কের মরিচাগুলোও ঝালাইও করে নেয়া যায়

·      অফিস থেকে ফিরে এসে যতই ক্লান্ত থাকুন না কেন, রিফ্রেশমেন্টের জন্য একটু গান হয়তো সাউন্ডবক্সে প্লে করাই যায় অথবা গান শোনার অভ্যাসটা আপনার আছেইসেই সময় নিজের পছন্দের গান না বাজিয়ে তার পছন্দের গান প্লে করুন দেখবেন অজান্তেই তার মনের সাথে একটা যোগাযোগ হয়ে গেছে আর হ্যা, যদি তার প্রিয় গানের রুচিও ভুলে গিয়ে থাকেন, তাহলে কিন্তু ভয়াবহ রিস্কে আছেন!

·     সপ্তাহে একটা দিন অবশ্যই ঘুরে আসবেন দুজনে ভালো হয় কোন আত্মীয়ের বাসাতে গেলেএতে সামাজিকতাটাও রক্ষা হবে আবার হৃদয়ের যোগাযোগটাও বাড়বেতবে সাবধান, সেই আত্মীয় যেন একপেশে আপনার পক্ষের না হয়এক সপ্তাহে আপনার মামাবাড়ি তো পরের সপ্তাহে তার খালার বাসায় এমন সমন্বয় বজায় রাখুন

·     আপনার সকল বিশ্বাস, সকল মতামত তার সাথে মিলে যাবে এমন আশা রাখবেন নাদুজনেই দুজনের মতামত বিশ্বাসকে শ্রদ্ধা করুন

·     যখনই সময় পাবেন তার সাথে বসে সুখের স্মৃতিচারণ করুন এটা টনিকের মত কাজ করে আপনি যদি চাকুরীজীবী আর আপনার স্ত্রী গৃহিণী হন তবে তাকে হোমওয়ার্ক দিনধরুন, একটা উপন্যাস কিংবা মুভি দিয়ে বললেন আজকে রাতে বাড়ি ফিরে এটা থেকে কুইজ জিজ্ঞাসা করবেনএতে করে সারাদিন তিনিও ব্যস্ত থাকবেন আর আর আপনিও বাড়ি ফিরে কথা বলার ছুতো খুঁজতে হবে না কথাই পেয়ে যাবেন

·        নিজেদের মধ্যে একান্ত ব্যক্তিগত স্বামী-স্ত্রী সুলভ যে দাম্পত্য সম্পর্ক সেটা কখনো নিভিয়ে দিবেন নাঅনেকে এটাকে অপ্রয়োজনীয় মনে করলেও স্বামী স্ত্রীর সুখী সংসারের জন্য একটি উষ্ণ দাম্পত্য সম্পর্ক প্রয়োজন

·        অনেক ব্যস্ত থাকার কারণে হয়তো তার জন্য গিফট, শপিং কিছুই করা হয় নাসবকিছুরই সমাধান আছে ডিজিটাল যুগে, হাতের কাছেই আছে ল্যাপটপ কাজ থেকে ১০ মিনিটের বিরতি নিয়ে অনলাইন শপিং করে অফিসে বসেই পাঠিয়ে দিতে পারেন তার প্রিয় উপহার তাকে মনে করিয়ে দিন তার প্রিয় একজন আছে, যে তাকে কখনোই ভুলেনি!

·      বইমেলা, চলচ্চিত্র মেলা, আর্ট সামিট, এক্সিবিশন এসব উৎসব এখন প্রায় সারাবছর জুড়েই চলতে থাকেইন্টারনেট থেকে সময়সূচী দেখে দুজনের সময় সুযোগ বুঝে ঢু মেরে আসলে কিন্তু মন্দ হয় না!

·     যতক্ষণ ঘরে থাকবেন ঘরের ছোটবড় কাজগুলো দুজনে ভাগ করে করুনএতে করে বোঝাপড়ার জায়গাটা নতুন করে তৈরি হবে

·     একান্তই যদি কখনো ঝগড়া কিংবা তর্ক বেধে যায়, একজন যখন রাগ প্রকাশ করবেন তখন আরেকজন চুপ থাকুনপরে শান্ত হলে দুজন দুজনকে বোঝানোর চেষ্টা করুন নিজেদের ঝগড়ায় কখনো তৃতীয় ব্যক্তিকে মধ্যস্থতার জন্য জড়াবেন না এতে করে পরে নিজেরাই নিজেদের কাছে ছোট হয়ে যাবেন

·        সবশেষে অতিরিক্ত নাটক সিনেমা দেখে আবেগি হয়ে একে অপরের কাছ থেকে ড্রামাটিক কিছু আশা করবেন নাআমরা নাটক সিনেমায় নয় বাস্তবে বসবাস করি বাস্তবে নিজেদের সম্পর্কটা নিজেদেরই ঝালাই করে নিতে হয়

বিশেষ প্রতিনিধি, ছবি: শাহারাত তুরিন

 

More news