উচ্চ শিক্ষায় কেন মালয়শিয়া হবে পছন্দের দেশ?



মালায়শিয়াতে পড়তে যাবেন কিনা, তা নিয়ে হয়ত আপনি দ্বিধা-দন্দ্বে আছন। কিন্তু আমরা নিশ্চিত, মালায়শিয়াতে পড়তে যাওয়ার যে সুবিধাগুলো আপনাকে বলব, তাতে কোন দ্বিধা থাকবে না। বরং আপনার ইচ্ছা আরও প্রবল হবে।

মালায়শিয়াতে কেন পড়তে যাবেন এর কিছু উল্লেখযোগ্য কারণ তুলে ধরলাম-

বিশ্বমানের পড়াশুনা

সন্দেহ নেই মালায়শিয়ার উচ্চশিক্ষা এখন বিশ্ব মানের। হবেইনা বা কেন? এটাযে সরাসরি উচ্চশিক্ষা বিষয়ক মন্ত্রণালয় দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। যাদের মূল উদ্দেশ্যই হচ্ছে মালায়শিয়াকে বিশ্বসেরা উচ্চশিক্ষার কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা। মজার ব্যাপার হল- এখানে পাবলিক বা প্রাইভেট বলে কিছু নেই। সব জায়গাই শিক্ষার মান নিশ্চিত করনে ব্যস্ত মালয়শিয়ান কোয়ালিফিকেশন এজেন্সি। এমনকি ২০০৭ সালে এই বিষয়ক অ্যাক্ট তৈরি করা হয়। তাহলে ভাবুন, শিক্ষার মান ভাল না হয়ে যাবে কোথায়? সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, মালয়শিয়া সরকার ২০২০ সালের মধ্যে বিশ্বের সেরা ছয় শিক্ষা কেন্দ্রের একটি হতে চায়। 


মালয়শিয়াতে বসেই ইউরোপ বা আমেরিকার ডিগ্রি লাভ   

মালয়শিয়াতে পড়তে গিয়ে আপনি সেখান থেকে ইউরোপ বা আমেরিকার নামিদামী বিশ্ববিদ্যালয়েরও ডিগ্রি নিতে পারেনমালয়শিয়াতে বেশকিছু বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ৩+০ বা ২+১ যৌথ প্রোগ্রাম চালু আছে। এই প্রোগ্রামগুলো মালয়শিয়া ও বাইরের বিশ্ববিদ্যালয় মিলে যৌথভাবে পরিচালনা করে। তাছাড়া, অনেক বিশ্ববিদ্যালয় আবার তাদের আলাদা আলাদা ক্যাম্পাস খুলেছে মালয়শিয়াতেআপনি সরাসরি সেখান থেকে ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি লাভ করতে পারেন

তুলনামূলক কম খরচ

অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকা, ইংল্যান্ড বা কানাডা কিংবা ফ্রান্স এর মত দেশের থেকে অনেক কম খরচে আপনি এখানে পড়তে পারবেন। থাকা খাওয়ার খরচও তুলনামূলক কম।

ব্যবসায় প্রশাসন শাখার খরচের উপর ভিত্তি করে নিচে দেশভিত্তিক তুলনামূলক খরচ তুলে ধরা হলো:

দেশ

টিউশন ফি

(গড় বাৎসরিক)

থাকা খাওয়ার খরচ

(গড় বাৎসরিক)

মোট শিক্ষা খরচ

(গড় বাৎসরিক)

মালয়শিয়া

৫,০০০ ডলার

৪,০০০ ডলার

৯,০০০ ডলার

অস্ট্রেলিয়া

১৫,০০০ ডলার

১০,৫০০ ডলার

২৫,৫০০ ডলার

আমেরিকা

১৮,০০০ ডলার

১৩,০০০ ডলার

৩১,০০০ ডলার

ইংল্যান্ড

১৫,০০০ ডলার

১২,০০০ ডলার

২৭,০০০ ডলার

কানাডা

১৩,০০০ ডলার

৮,৫০০ ডলার

২১,৫০০ ডলার


নেই ভাষাভিত্তিক সীমাবদ্ধতা

যদিও মালয় দাপ্তরিক ভাষা, কিন্তু ইংরেজি ব্যাপক ভাবে ব্যবহৃত হয়। ব্যবসার ক্ষেত্র থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষা মাধ্যম পর্যন্ততাই মালয় শিখতে হবে এরকম দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই।

দ্রুত ইমিগ্রেশন সুবিধা

অনেক দেশের স্টুডেন্ট ভিসা পেতে বেশ ঝামেলা পোহাতে হয়। সে তুলনায় মালয়শিয়ান ভিসা খুব সহজেই পাওয়া যায়।

এতো গেল পড়াশুনার কথাবার্তা। এছারাও আরও কিছু তথ্য উল্লেখ করার মত। চলুন জেনে নেই।

উন্নত মানের জীবন যাত্রা

দক্ষিণ-পুর্ব এশিয়ায় মধ্যে উন্নত রাষ্ট্র বলতে মালয়শিয়ার নাম আসে প্রথমেই উন্নত মানের আবাসন ব্যবস্থা, মেডিকেল সুবিধা, দ্রুত যোগাযোগ ব্যবস্থা, দ্রুত গতির ইন্টারনেট সুবিধা, বিশ্বমানের পড়াশুনার সুবিধা ইত্যাদি। এক কথায়, কি নেই এখানে! উন্নত জীবনের সকল সুযোগ- সুবিধা পাবেন এখানে 

ভিন্ন স্বাদের বিভিন্ন খাবার

মালায়শিয়ায় খাবার নিয়ে কোন চিন্তা নেই। দেশে আপনি যা খেয়ে অভ্যস্ত, ওখানেও তাই খেতে পারবেন। তাছাড়াও, মালয়শিয়ার বিভিন্ন কালচারের মানুষদের তৈরি বিভিন্ন খাবার তো খেতেই পারবেনপাশ্চাত্যের নানা রকম খাবারও সচরাচর পাবেন।

 

স্থিতিশীল রাজনৈতিক অবস্থা

দেশ বাছাই করতে অনেকে ঐ দেশের রাজনৈতিক অবস্থাকে বেশ গুরুত্ব দিয়ে থাকেনদেওয়া উচিতওযেমন ধরুন- মিশর কিংবা তুরস্ক অনেকের পছন্দের দেশ ছিল। কিন্তু এখন রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে আগের মত পছন্দের তালিকায় আর নেই। সেই দিক থেকে মালয়শিয়াতে এরকম কোন সমস্যা নেই।

অপরাধের হার কম

মালয়শিয়াতে অপরাধের হার একেবারেই কম। তাই এখানে আপনি নিশ্চিন্তে জীবন যাপন করতে পারবেন

আবহাওয়া

মালয়শিয়াতে প্রায় সারা বছরই মাঝারি ধরনের গরম থাকে। ২১ থেকে ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। মানে আমাদের দেশের গরম কালের মত। এই আবহাওয়ার সাথে খুব সহজেই আপনি নিজেকে মানিয়ে নিতে পারবেন।  

বন্ধুসুলভ মালয়শিয়ান 

মালয়শিয়ানরা খুবই বন্ধুসুলভ আচরণ করেআপনার ওখানকার দিনগুলো খুব ভাল কাটবে,  আশা করি।

ভ্রমণের দেশ মালয়শিয়া

মালয়শিয়াতে পড়তে গিয়ে আপনি অনেক সুন্দর সুন্দর জায়গায় ঘুরে বেড়াতে পারবেনসমুদ্র, চা বাগান, দ্বীপ, নন্দনীয় উড়াল সেতু ইত্যাদি। 

মালয়শিয়াতে এত সুযোগ-সুবিধা পাবেন ভেবে, এখন নিশ্চয়ই আর দ্বিধায় ভুগছেন না।

তথ্যসূত্র- ইউনিভার্সিটি মালয়শিয়া ডট নেট


More news