UIU-র পপিং কিং গালিব ও তার ব্লু পপারস



স্বপ্ন তার কাছ থেকে শুধুমাত্র ৬০ সেকেন্ডের দূরত্বে। যে স্বপ্ন পূরণের জন্য ছিল হাজার কোটি সেকেন্ডের অপেক্ষা চারপাশে প্রচণ্ড আলোর ঝলকানি। পারফরমেন্স শেষ করে স্টেজ থেকে নেমে আসলেন অ্যামেরিকান র‌্যাপার ও হিপ হপ সিঙ্গার, Akon!!

ফ্ল্যাশ মব এর অফিসিয়াল সং নিয়ে ICC World Cup Opening ceremony(২০১৪)’র মঞ্চে উঠে এলেন ফুয়াদ, কণা, এলিটা তাদের সাথে মঞ্চে উঠে এলেন UIU বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন ছাত্র, ‘গালিব’ আর ‘ফারহান’ (মেম্বার আব ‘দ্যা ব্লু পপারস’) গানের তালে তালে শরীরটাকে একেবারে শূন্যে তুলে ফেললেন আব্দুল্লাহ গালিব খান। সাথে সাথে কয়েক হাজার মানুষের করতালি আর চিৎকারে ভারি হয়ে গেল ICC World Cup মঞ্চের পুরো আকাশ ........

এটা অবশ্য অনেক আগের কথা, মানে ২০১৪ সালেরএরপর প্রত্যেকটা স্বপ্ন তার কাছে ধরা দিয়েছে সাফল্যে রূপ নিয়ে


‘আব্দুল্লাহ গালিব খান’সম্পূর্ণ নতুন ড্যান্সিং সংস্কৃতি, ‘পপিং’-কে তিনি শুধু বাংলাদেশে নিয়েই আসেননি, বরং এটিকে করেছেন পরিচিত এবং স্বীকৃত। পপিং নিয়ে অল্প কথায় কিছু জেনে নেয়া যাক আগে.....

পপিং: সহজ কথায়, ‘Popping is a sort of ancient street dance১৯৮০ সালে USA-তে সর্বপ্রথম হিপ হপ কালচার জনপ্রিয় হয় যার ৪টি ধরনের মধ্যে রয়েছে RAP, Graffiti, Beat Making, Street Dance আবার Street Dance এর মধ্যে রয়েছে Breaking & Popping বাংলাদেশে Popping এর শুরু হয় ২০০৯ সালে যাদের মাধ্যমে শুরু হয় তাদের মধ্য আব্দুল্লাহ গালিব খান একজন


তিনি ২০১২ সালের শেষের দিকে ভর্তি হন ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হওয়ার পরপরই ৬ জনকে নিয়ে তৈরি করেন “Blue Poppers(ব্লু পপারস)” ব্লু পপারসকে সম্পূর্ণভাবে তৈরি করতে প্রায় বছর খানেক লেগে যায় এই কাজে তাকে সহায়তা করেন হাসিন আহবাব হৃদয় তিনিও UIU-র ছাত্র। এরপর ২০১৩ সালের শেষের দিকে ব্লু পপারসরা অংশগ্রহণ করেন Asian Debate Academy(ADA)-তে

সেখান থেকে যাত্রা শুরু করে ২০১৪ সালে পেয়েছেন অনবদ্য সাফল্য। তখন তার সাথে পারফর্ম করেন UIU-র ব্লু পপারসরাICC World Cup Opening Ceremony-র ফ্ল্যাশ মব-UIU-র ব্লু পপারসরা অর্জন করে তৃতীয় স্থান


এরপর বিক্রয় ডট কম আয়োজিত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে জিতে নেন এক লাখ টাকার পুরস্কার। পান American Embassy Program এর Next Level-এ অংশগ্রহণের সুযোগ Sprite এর একটি অ্যাকটিভেশনে ব্লু পপারসদের নিয়ে যাওয়া হয় দেশের ৫০টি ইন্সটিটিউশনেযেগুলোর মধ্যে ছিল স্কুল, কলেজ এবং ইউনিভার্সিটি

২০১৫ সালে ব্লু পপারসদের সাফল্যের তালিকা ছিল আর একটু বড় এবার প্রথম UIU-র পক্ষ থেকে Cultural Fest-এ অংশগ্রহণ করেন তারা যেখানে BUP থেকে অর্জন করেন Best Performance Award এবং ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিতে তাদের পারফর্মেন্স ছিল মুগ্ধ করার মত এছাড়া AIUB আয়োজিত IEEE প্রোগ্রামটিতেও তারা পুরস্কৃত হন অংশগ্রহণ করেন BD Hip Hop Fest-এ।

তিনি বাংলা চলচ্চিত্র Life in Rainbowর টাইটেল ট্র্যাকটি কোরিওগ্রাফি করেন এবং টাইটেল ভিডিওতে ব্লু পপারসরা পারফর্ম করেনপারফর্ম করেন গ্রামীণ ওয়ার্কশপে Colors FM এর ক্যাম্পাস ব্রান্ডিংয়ে ব্লু পপারসরা UIU-র পক্ষ থেকে অংশগ্রহণ করেন২০১৫ সালে তাদের সবচেয়ে বড় পারফর্মগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল ‘GOOGLE DEV FEST’ এর পারফর্মেন্স

এ বছর তাদের ওয়ার্ল্ড ওয়াইড Mtv 360 ভিডিও প্রকাশ পেতে যাচ্ছে। World Of Dance(WOD) Hip Hop Championship-এ পারফর্ম করবেন তারা Daily Star, প্রথম আলো, ইত্তেফাক, কালের কণ্ঠ সহ বড় বড় জাতীয় দৈনিকে ইতিপূর্বে ব্লু পপারসদের নিয়ে আর্টিকেল প্রকাশিত হয়েছে

 

এসবের বাহিরে গালিব কাজ করেন রেডিও স্বাধীন, রেডিও ফুর্তি এবং কালার এফএম এর সাথেপপিং এর বাহিরেও গালিবের চিত্রকর্মের প্রশংসা না করলেই নয়। অবসর সময় গুলোতে খুব অল্প সময়ের মধ্যে তৈরি করে ফেলেন চমৎকার চমৎকার গ্রাফিতি(GRAFFITI)এছাড়া ভিডিও এডিটিংয়ে তিনি বেশ পারদর্শীআর মারামারিটাও (Taekwondo) তিনি বেশ ভালোই করেন!!

সাফল্য এখন তার হাত ধরে ফেলেছে ৬ জন সদস্যকে নিয়ে শুরু করেছিলেন ব্লু পপারস আজ এই পরিবারের সদস্য ৫৭ জন পপিং তিনি এখন ঘরে বাহিরে সর্বত্রই শিখিয়ে চলেছেন

তার সাফল্যের মূলমন্ত্র কি শুধুই কর্মনিষ্ঠা আর অনুশীলন?

ছোট্টো একটা গল্প বলি...... ‘গালিবের সাথে যেদিন প্রথম দেখা করতে গিয়েছি দেখা হবার পর তিনি তার খুবই আপন একজন ছোটো ভাইয়ের সাথে আমাকে পরিচয় করিয়ে দিলেন এভাবে....এটা আমার খুবই ক্লোজ একটা ছোট বোন!!আমি একটা ধাক্কা খেলাম, কারণ ওটা ছিল আমাদের প্রথম দেখা

বুঝলাম, তার সাফল্যের মূলমন্ত্র শুধুই কর্মনিষ্ঠা নয়, বরং একটা পরিবারের মতো সবাইকে মমতা দিয়ে আটকে রাখার ইচ্ছা আমি তাই আর দেরি করলাম না, বলেই ফেললাম “ আমি কোক খেতে চাই” হাজার হলেও আমি এখন তার ছোট বোন!!!

ক্যাম্পাস প্রতিনিধি


More news