সকালে খালি পেটে ব্ল্যাক কফি কি স্বাস্থ্যকর?



বন্ধুদের আড্ডায় কিংবা পরিবারের সাথে বিকেলের নাস্তায়, ব্ল্যাক কফি ছাড়া হয়ত আপনার চলেই না। কিংবা হয়ত কাজের চাপ থেকে বাঁচতে, প্রশান্তি খোঁজেন এক কাপ ব্ল্যাক কফিতেহতে পারে আপনি কফিতে বেশ আসক্ত। কিন্তু তাই বলে কি প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠেই কফি খান? একদম খালি পেটে, ব্ল্যাক কফি? তাহলে বলব, এই অভ্যাস এখনই ত্যাগ করুন। কেননা, এই অভ্যাস প্রতিনিয়ত আপনার শরীরের মারাত্বক ক্ষতিসাধন করে চলেছে।

আপনি যখন একদম খালি পেটে ব্ল্যাক কফি খান, তখন পাকস্থলীতে প্রচুর পরিমাণে হাইড্রোক্লোরিক এসিডের উৎপাদন বেড়ে যায়। যার কারণে, গ্যাস্ট্রিক থেকে আলসার পর্যন্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। এই এসিড মূলত খাবার হজমে সাহায্য করে। কিন্তু কফি খাওয়ার পর হঠাৎ করেই যখন আপনি ভারি খাবার খান, তখন হাইড্রোক্লোরিক এসিডের মাত্রাগত অসমতার কারণে পাকস্থলীতে হজম প্রক্রিয়া বাধাপ্রাপ্ত হয়। বিশেষ করে প্রোটিন হজমে সমস্যা হয় আরও বেশি যদি প্রোটিন ঠিক মত হজম না হয়, অন্ত্র স্ফীত হয়ে যায় এবং অন্ত্রে প্রদাহ বেড়ে যায়। এর মারাত্বক রূপ হিসেবে অনেক সময় অন্ত্রে ক্যান্সার পর্যন্ত দেখা দিতে পারে। তাই বিশেষজ্ঞরা খালি পেটে ব্ল্যাক কফি খেতে নিষেধ করেছেন।

তাছাড়া, খালি পেটে ব্ল্যাক কফি খেলে শরীরে দ্রুত কর্টিসেল হরমোনের মাত্রা বেড়ে যায়। এই মাত্রা স্বাভাবিক হতে বেশ সময় লাগে। যার কারণে ঘুম কম হয়এছাড়াও, অতিরিক্ত এসিডের মাত্রার কারণে বমি হতে পারে যখন তখন

তাই বিশেষজ্ঞদের মতে ঘুম থেকে উঠার অন্তত এক ঘন্টা পর সকালের নাস্তা করে, তারপর কফি খাওয়া উচিত। পুরো নাস্তা না করলেও অন্তত একটা রুটি খাওয়ার পর। যদি কফি দিয়ে দিন শুরু না করলে আপনার চলেই না, তবে ব্ল্যাক কফি না খেয়ে তাতে একটু দুধ বা বাটার মিশিয়ে খেতে পারেন। তাহলে অন্তত ক্ষতির পরিমাণ একটু কম হবে

হেলদিফুডহেডলাইন্স ডট কম অবলম্বনে।  


More news