গরীব শিশুদের পাশে থেকে বর্ণ’র একুশ উদ্‌যাপন



‘বর্ণ’ সামাজিক সংগঠনটির যাত্রা শুরু হয় ৮ মার্চ, ২০১৬ সালে সানরাইস কে. জি. অ্যান্ড হাই স্কুল, বাকলিয়া, চট্টগ্রাম’ থেকে। এই সংগঠনের কর্ণধার হিসেবে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন ‘মোঃ আনোয়ার হোসাইন’। এখন পর্যন্ত বর্ণ সংগঠনটির সদস্য সংখ্যা ৩০ জন, যারা বর্ণকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রতিনিয়ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

বর্ণ মূলত গরীব শিশুদের শিক্ষার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষাদানের পাশাপাশি বর্ণ সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজ করে থাকে। এরই অংশ হিসাবে গত বছর ঈদ-উল-ফিতরে বর্ণ গরীব শিশুদের জন্য নতুন পোশাক বিতরণ এবং শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি পালন করে। তারই ধারাবাহিকতায় এই বছর, ২১শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ‘বর্ণ’ গরীব শিশুদের সাথে একুশ উদ্‌যাপন করে। এর মূল উদ্দেশ্য ছিল, ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো এবং শিশুদের মনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার চেতনা সৃষ্টি করা।


২১শে ফেব্রুয়ারির সকালে বর্ণ প্রভাতফেরি এবং ভাষা শহীদদের স্মরণে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে একুশ উদ্‌যাপন অনুষ্ঠান শুরু করে। অনুষ্ঠানটির অনলাইন পার্টনার হিসেবে ছিল BDYouth.com এবং রেডিও পার্টনার ছিল Radio Shadhin 92.4FM।

প্রভাতফেরি এবং শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর সানরাইস কে. জি. অ্যান্ড হাই স্কুল প্রাঙ্গণে শিশুদের ছবি আঁকা প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। শিশুদের আঁকা ছবিতে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের অনেক দিক ফুটে উঠে। এলাকার ছেলে-মেয়ে, অভিবাবক এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ছবি প্রদর্শনীতে উপস্থিত ছিলেন। আঁকা ছবিগুলো অনেক প্রশংসিত হয় এবং সবাই তাদের জন্য শুভকামনা জানান।

দিনের শেষ ভাগে ছিল বর্ণ’র শিশুদের জন্য ডকুমেন্টারি প্রদর্শনী। ডকুমেন্টারি প্রদর্শনীর মাধ্যমে শিশুদের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হয়। এছাড়াও দুপুরে শিশুদের জন্য ভাল খাবারের আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় বর্ণ’র একুশ উদ্‌যাপন


বর্তমানে বর্ণ টিম সানরাইস কে জি অ্যান্ড হাই স্কুল, বাকলিয়া, চট্টগ্রামে ২টি রুম ভাড়া নিয়ে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন এবং সকল ব্যয় বহন করা হয় প্রতি মাসে সদস্যদের দেওয়া টাকা দিয়েই। বর্ণ’র কর্ণধারসহ সকল সদস্য বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী এবং তাদের চোখে বর্ণকে নিয়ে হাজারো স্বপ্ন। এই স্বপ্নকে সামনে রেখে, সকল বাঁধা অতিক্রম করে, হাঁটি হাঁটি পা পা করে বর্ণ এগিয়ে যাচ্ছে সামনের দিকে।  


“আসুন না, সবাই সবার জায়গা থেকে এই সমাজ এবং দেশটাকে পরিবর্তন করার জন্য কাজ করি। যে কাজটা করছে বর্ণ।” এমনটা প্রত্যাশা বর্ণ টিমের। বর্ণ মনে প্রাণে বিশ্বাস করে যে তারা একদিন সমাজ পরিবর্তনের হাতিয়ার হয়ে উঠবে, যার হাত ধরে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

বর্ণকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে যদি কেউ সহযোগিতা করতে চান তাহলে যোগাযোগ করতে পারেন বর্ণ’র ফেসবুক পেইজে।

বর্ণ পেজের লিঙ্ক: https://www.facebook.com/borno.community

নিজস্ব প্রতিবেদক

More news