প্রেজেন্টেশন দেবার ৬টি স্মার্ট পদ্ধতি



শুধু স্লাইড ভালো বানালেই হবে না। অনেক অনেক দর্শকদের সামনে সেই স্লাইডের উপর ভিত্তি করে প্রেজেন্টেশনটাও ঠিকঠাকভাবে দিতে হবে। প্রেজেন্টেশন দেবার স্মার্ট কিছু পদ্ধতি নিয়ে নিচে আলোচনা করা হল।

১. গল্পের ভঙ্গিতে প্রেজেন্টেশন শুরু করা

গল্পের ভঙ্গিতে যদি প্রেজেন্টেশন শুরু হয় তবে কেমন হবে? ধরুন যে বিষয়ে আপনি প্রেজেন্টেশন দিচ্ছেন সে বিষয়ে দর্শক কিছুই জানে না। সেক্ষেত্রে গল্পের ভঙ্গিতে প্রেজেন্টেশন দিলে লোকে আপনার টপিক সহজে বুঝতে পারবে।

২. খুব বেশি ইনফরমেশন নয়

যে টপিকের উপর কথা বলছেন শুধু সেই টপিকের মধ্যেই আবদ্ধ রাখুন আপনার ইনফরমেশন। আশেপাশের আনুষঙ্গিক বিষয়ে বেশি ইনফরমেশন আনার কোনই যৌক্তিকতা নেই।

৩. স্লাইডের দিকে তাকিয়ে নয়, দর্শকের দিকে তাকিয়ে

অনেককেই দেখা যায় স্লাইডের দিকে তাকিয়ে গড়গড় করে রিডিং পড়ে চলেছে। এটা কখনোই উচিত না। এটা প্রেজেন্টেশন নয়। প্রেজেন্টেশন তখনই বলা হয় যখন স্লাইডের কম ইনফরমেশনকে দর্শককে বুঝিয়ে বর্ণনা করা হয়।

৪. হ্যান্ডআউট রেডি করে রাখুন

প্রেজেন্টেশনের সময় কি বলবেন সেটা একটা কাগজে লিখে নিন। কাগজে থাকবে প্রেজেন্টেশনের সব কন্টেন্টের নাম, গুরুত্বপূর্ণ শব্দ এবং লাইন। ভুলে গেলে চট করে কাগজের দিকে মনে করে নিলেন। তবে অবশ্যই কাগজের দিকে নয়, পুরোটা সময় দর্শকের দিকে তাকিয়ে বলার চেষ্টা করবেন।

৫. দর্শককে ইনভলভ করুন আপনার প্রেজেন্টেশনে

মাঝে মাঝে দর্শকের উদ্দেশে চমৎকার কিছু প্রশ্ন রাখতে পারেন। মাঝে মাঝে দর্শক হাসানোর জন্য প্রাসঙ্গিক কিছু হিউমার কথা বলতে পারেন। এতে দর্শক আপনার প্রেজেন্টেশনের সঙ্গে পুরোপুরি একাত্ম হয়ে যাবে।

৬. ড্রেস কোড এবং অন্যান্য প্রস্তুতি

সারা বছর উরাধুরা থাকলেও প্রেজেন্টেশনের দিন ফর্মাল ড্রেস কোড মেইন্টেইন করুন। এটা সব ভার্সিটি বা ইন্সটিটিউটের জন্য এক না। তাই শিক্ষককে এই বিষয়ে আগেই জিজ্ঞেস করে নিন। প্রেজেন্টেশনের দিন কথা বলার জন্য কমপক্ষে ২ থেকে ৩ দিনের একটি প্রস্তুতি নিতে পারেন। প্রতিদিন এক ঘণ্টা সময় দিলেই ভালো একটা প্রেজেন্টেশন এর জন্য প্রস্তুতি নিতে পারেন।

ক্লাসরুম বা অন্যত্র স্থানে প্রেজেন্টেশন দেবার আগে পেনড্রাইভ থেকে ফাইল কপি করে ল্যাপটপের ফোল্ডারে রাখুন। ল্যাপটপের চার্জ দেখে নিন। রুমের পেছন থেকে প্রজেক্টরে ফন্ট দেখা যাচ্ছে কিনা চেক করে নিন। এবং অবশ্যই সাউন্ড সিস্টেম চেক করুন।

যদি সাউন্ড সিস্টেম না থাকে, তাহলে অবশ্যই উঁচু গলায় প্রেজেন্টেশন দেবার চেষ্টা করুন। যাতে পেছনের ব্যক্তিটিও স্পষ্টভাবে আপনার কথা শুনতে পারেসুতরাং প্রেজেন্টেশন নিয়ে আর খামখেয়ালি নয়। দুর্দান্ত প্রেজেন্টেশনে মুগ্ধ করুন আপনার বন্ধু এবং সহকর্মীদের।

প্রেজেন্টেশনের জন্য পিছিয়ে পড়ছেন না তো?

প্রেজেন্টেশন স্লাইড! কি করবেন? কি করবেন না?


অসংখ্য sample presentation পাওয়া যায় যে ওয়েবসাইটগুলোতে


প্রেজেন্টেশন দেবার ৬টি স্মার্ট পদ্ধতি


ল্যারিফেরল্যাজো, গ্যারিনল্ড এবং ফোর্বস অবলম্বনে, ছবি: ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত

More news