করোনাভাইরাসজনিত উদ্ভুত পরিস্থিতিতে দাপ্তরিক কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় একটি স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) প্রণয়ন করেছে।

বুধবার (২৫ মার্চ) সংক্রান্ত এক অফিস আদেশ জারি করা হয়েছে। এসওপির কার্যক্রমগুলো হলো-

১. প্রত্যেক কর্মকর্তা/কর্মচারী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, আইইডিসিআর কর্তৃক জারিকৃত নির্দেশনা অনুসরণ করে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।

২. দাপ্তরিক বা ব্যক্তিগত ভাব বিনিময়ের সময় নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

৩. হ্যান্ড স্যানিটাইজার/মাস্ক/গ্লাবস/সাবান ইত্যাদি নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবহার করবে।

৪. অহেতুক আলাপ-আলোচনা/খোশগল্প থেকে যথাসম্ভব বিরত থাকবে। বিনা কারণে কর্মকর্তা/কর্মচারীরা দুইয়ের অধিক একত্রিত হবে না।

৫. দরজার লক/হ্যান্ডেল/সিটকিনিসহ বাথরুম, টয়লেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে যথাসম্ভব হাইজেনিক নিয়ম মেনে চলবে।

৬. বর্তমানে প্রচলিত দরজার লক/হ্যান্ডেল/সিটকিনি পরিবর্তন করে ওয়ান টাচ সিস্টেম লক স্থাপনের জন্য গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়কে পত্র দেওয়া হবে।

৭. কর্মকর্তারা যথাসম্ভব ইন্টারকম/টেলিফোনে যোগাযোগ করবে। ব্যক্তিগত যোগাযোগ যথাসম্ভব পরিহার করবে।

৮. দপ্তর/সংস্থাসমূহ দাপ্তরিক কাজ এবং করোনাভাইরাস সংক্রান্ত হালনাগাদ প্রতিবেদন প্রতিদিন দেবে।

জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হলে বাড়িতে থেকে কাজ করার ক্ষেত্রে অনুসরণীয় নির্দেশাবলি-

১. দপ্তর/সংস্থাসমূহ ই-ফাইলিংয়ের মাধ্যমে দাপ্তরিক কার্যক্রম সম্পন্ন করবে।

২. কর্মকর্তারা প্রয়োজনে নিজ বাসায় অবস্থান করে ই-ফাইলিংয়ের মাধ্যমে দাপ্তরিক কাজ করবে।

৩. ইমেইল এবং টেলিফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করবে।

৪. জরুরি কাজের জন্য কন্ট্রোল রুম চালু থাকবে (কন্ট্রোল রুম এর টেলিফোন নম্বর: ৯৫৪৬০৭২)।

৫. অধিশাখা/শাখা কর্মকর্তারা স্ক্যানার ব্যবহার করে ই-ফাইলিংয়ের মাধ্যমে দাপ্তরিক কার্য করবে।

৬. সরকার কর্তৃক জারিকৃত জরুরি নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।

Leave a Reply

6 − 3 =